শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ ০৪:৩০:৪৫ এএম

পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ আহত ২৫

জেলার খবর | বরগুনা | বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ০৬:৩৭:২৬ পিএম

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন নিয়ে বর্ধিত সভা চলাকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বরগুনার সার্কিট হাইজ এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে গুরুতর আহতদের মধ্যে যাদের পরিচয় পাওয়াগেছে তারা হলেন, জুয়েল(২২), মোহামামদ আলী(৫০), মো. গোলাম মোস্তফা(৬০), মো. সেলিম(৪৫), রমিম(৩৩), রাজিব(৩০), রুবেল(২৫), জাহাঙ্গীর(৪৫), রফিক(৬০), শাহিন(৩০), মনির(৬০) ও স্বপন(৫০)। তারা সকলেই পাথরঘাটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দ। তাহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রুবেল, সেলিম ও স্বপনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য আহতদের বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এসময় কেন্দ্রীয় নেতারা সার্কিট হাউজ মিলনায়তনের ভিতরে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, কেন্দ্রীয় নেতা ও বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী ফারজানা সবুর রুমকির নেতৃত্বে একটি মিছিল সার্কিট হাউজে পৌছালে সেখানে উপস্থিত আরেক সভাপতি প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের সমর্থকরা তাদের উপর হামলা করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বরগুনার সার্কিট হাউজে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, কেন্দ্রীয় নেতা ও বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী সাবেক সাংসদ মরহুম গোলাম সবুর টুলুর মেয়ে ফারজানা সবুর রুমকির নেতৃত্বে একটি মিছিল “রাজাকারের আস্তানা পাথরঘাটায় চলবেনা, রাজাকার সন্তানদের পাথরঘাটায় ঠাঁই নাই’ লেখা ফেস্টুন নিয়ে শ্লোগান দিয়ে সার্কিট হাউজে পৌছালে উপজেলা আওয়ামীলীগের অপর সভাপতি প্রার্থী বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের অনুসারীরা ধাওয়া করে । উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় অন্তত ২৫ জন আহত হয়। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, রুমীর অনুসারীরা তার কর্মীদের উপর অতর্কীত হামলা করে। এতে তার কয়েকজন কর্মী আহত হয়।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ্দুজ্জামান জানান, পুলিশের সতর্ক অবস্থানের কারনে সংঘর্ষটি ছড়িয়ে পরতে পারেনি। এঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ২০

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন নিয়ে বর্ধিত সভা চলাকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বরগুনার সার্কিট হাইজ এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে গুরুতর আহতদের মধ্যে যাদের পরিচয় পাওয়া গেছে তারা হলেন, জুয়েল(২২), মোহামামদ আলী(৫০), মো. গোলাম মোস্তফা(৬০), মো. সেলিম(৪৫), রমিম(৩৩), রাজিব(৩০), রুবেল(২৫), জাহাঙ্গীর(৪৫), রফিক(৬০), শাহিন(৩০), মনির(৬০) ও স্বপন(৫০)। তারা সকলেই পাথরঘাটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রুবেল, সেলিম ও স্বপনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য আহতদের বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এসময় কেন্দ্রীয় নেতারা সার্কিট হাউজ মিলনায়তনের ভিতরে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, কেন্দ্রীয় নেতা ও বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী ফারজানা সবুর রুমকির নেতৃত্বে একটি মিছিল সার্কিট হাউজে পৌছালে সেখানে উপস্থিত আরেক সভাপতি প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের সমর্থকরা তাদের উপর হামলা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বরগুনার সার্কিট হাউজে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, কেন্দ্রীয় নেতা ও বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী সাবেক সাংসদ মরহুম গোলাম সবুর টুলুর মেয়ে ফারজানা সবুর রুমকির নেতৃত্বে একটি মিছিল “রাজাকারের আস্তানা পাথরঘাটায় চলবেনা, রাজাকার সন্তানদের পাথরঘাটায় ঠাঁই নাই’ লেখা ফেস্টুন নিয়ে শ্লোগান দিয়ে সার্কিট হাউজে পৌছালে উপজেলা আওয়ামীলীগের অপর সভাপতি প্রার্থী বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের অনুসারীরা ধাওয়া করে । উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় অন্তত ২০ জন আহত হয়। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, রুমীর অনুসারীরা তার কর্মীদের উপর অতর্কীত হামলা করে। এতে তার কয়েকজন কর্মী আহত হয়।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ্দুজ্জামান জানান, পুলিশের সতর্ক অবস্থানের কারনে সংঘর্ষটি ছড়িয়ে পরতে পারেনি। এঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন