সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ০৪:১৭:৩৪ পিএম

লেখায় একটু সেক্স থাকলে ভালোই লাগে

উম্মুল ওয়ারা সুইটি | খোলা কলাম | শনিবার, ২৭ আগস্ট ২০১৬ | ০৩:৩৯:৩২ পিএম

কেমন আছেন। একটু লেখা-টেখাদিন। আপনার লেখায় ধার আছে। একেরপর এক মেয়েগুলো ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। মিডিয়ায় লিখে ঝড় তুলে দিন।
টেলিফোনের অপর প্রান্ত থেকে জবাব এলো, হুম সত্যিই ভীষণ কষ্ট হচ্ছে। দেশের পুরুষের সংখ্যা কমে ধর্ষকের সংখ্যা বাড়ছে।এটা নিয়ে লিখে কি হবে? কিচ্ছু হবে না। দ্রুত বিচার না হলে এইসব ঘটনা থামানো খুব কঠিন। ধর্ষণ শব্দটাই আমার কাছে এখন উত্তেজক শব্দের মতো মনে হয়। একের পর এক ধর্ষিতা প্রাণ হারাচ্ছে , আর বুক চিতিয়ে ধর্ষকরা ঘুরে বেড়াচ্ছে। অর্থহীন মনে হয় এনিয়ে কথা বলা।
আবার ওপাশ থেকে আশ্বস্ত মৃদু হাসি। ঠিকই বলেছেন। এই যে এটা নিয়ে লিখুন। নারীদের যৌন স্বাধীনতা সবার আগে জরুরী , এটা তো আপনি বরাবরই বলতেন। যৌন নিযাতন করে একেকটি ফুলের মতো নিষ্পাপ মেয়েকে মেরে ফেলছে, এটা তো ভয়াবহ।
লেখক কথা থামিয়ে বললেন, এটা মোটেও ভয়াবহ নয়। ভয়াবহ হলো ধর্ষকদের বাঁচানোর চেষ্টা। বিচারহীনতা পশুদের পাশবিকতাকে আরো দ্বিগুনবেগে জাগিয়ে তুলছে। ধর্ষক আশ্রয় পাচ্ছে। তাদের জন্য আশ্রয়দাতারা তৈরি হয়ে থাকেন। এ নিয়ে কি লিখবো। যতক্ষণ লিখবো-রক্তক্ষরণ হবে। আমি অন্য একটি বিষয় নিয়ে লিখি? লেখা তো হয়েই গেছে। এখন যা বললেন, তাতেই চলবে। প্রতিবাদ ক্ষোভ আর দ্রোহ আপনার কথায় ফুটে উঠেছে। আপনার কথাগুলো শুনতে শুনতে আমার গায়ের লোম খাড়া হয়ে গেছে। মন বিষিয়ে গেছে, মনে হচ্ছে আমি নিজেই এইসব ধর্ষক-খুনীদের বিচার করি। ঠিক আছে, একটা লেখা আপনাকে পাঠাবো। আজই পাবেন। 
আপনাকে ধন্যবাদ। আরেকটা কথা। লেখায় একটু সেক্স বিষয়টি উল্লেখ করবেন। এই যে কিছুক্ষণ আগে আমাকে বললেন, জৈবিক চাহিদা মানুষের সমান। এটা প্রাকৃতিক। এই বিষয়টাকে এতোটা ক্লাসিক্যালভাবে না বলে একটু র ফরমেটে বলবেন। পাঠক এখন খোলামেলা সোজা-সাপটা লেখা বেশি পছন্দ করে। জবাব দিলাম, তাই নাকি! আমরাও চাই মানুষের যা কিছু প্রাকৃতিক, তা যেনো খোলামেলাই হয়। এ নিয়ে কেন শুধু নারীর দুর্ভোগ হবে। এটার বিপক্ষে আমি। তাহলে এভাবেই একটা লেখা দিন। আমার ইমেইল আইডিতে পাঠাবেন।
একটা অস্বস্তি নিয়ে ফোনটা ছাড়লাম। আমি বুঝেছি। তিনি কি বোঝাতে চেয়েছেন। মাঝে মাঝে নারীবাদী লেখকদের লেখা পড়ে আমার কাছে মনে হয়, তারা নীলক্ষেতের বইয়ের দোকানের চৌকির নীচে লুকিয়ে রাখা পর্ণ চটিগুলোর নকল লিখে চলেছেন। দোষ নেই কারো। আমি নিজেই শুনেছি নারী লেখকদের কলাম নিয়ে কেউ কেউ বলেছেন, নারীদের লেখায় সেক্স বিষয় থাকলে পাঠক খুব টানে। একজন বন্ধুকে বিষয়টি শেয়ার করেছি, তিনি বলেছেন- মেয়েদের মুখে বা লেখায় এই বিষয়টি থাকলে অনেক ছেলেই পুলক অনুভব করে।
লেখক : সাংবাদিক।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন