সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ০৫:১২:২৪ পিএম

ত্রিশ লক্ষ সংখ্যাটাকে নাম হিসাবে নিলাম!

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু | খোলা কলাম | বৃহস্পতিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৬ | ০৭:৫৪:৪১ পিএম

সিঙ্গাপুর থেকে, মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু: যে দেশে আদম শুমারিতে জনসংখ্যা কতো সঠিক নির্ণয় করা কঠিন  ,সংখ্যার শেষে লিখতে হয় প্রায় !ভোটার হাল নাগাদে ঘড় মিল লাগাতার ,মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা নিয়ে সংঘাত হয়, হয় বাক্য বিনিময়,জেল জরিমানা আদালত ,নিউজ পোর্টালে, পত্রিকায় , টক শো গরম হয়  যে দেশে ,সে দেশ আমার নিজের দেশ। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত লাল সবুজের পতাকার বাংলাদেশ। স্বাধীনতা মুক্তির সংগ্রামের সংখ্যা নিয়ে টানাটানি করে উজবুক ,কিন্তু রক্তের নদী বয়ে ছিলো এটাই সত্য। ইজ্জত লুন্ঠিত হয়ে ছিলো ,এটাই সত্য , টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়ায় লাশের আদম শুমারি কে করে ছিলো ,কিভাবে  করেছিলো সে প্রসঙ্গে না যাই ,ধরে নেই  ত্রিশ লক্ষ শহীদ এটা  একটা নাম ,রক্তের নদীর নাম ,এক সাগর রক্তের নদীর নাম  ত্রিশ লক্ষ ,শহীদ মুক্তি যোদ্ধার এক ফোঁটা রক্তের নাম ,ত্রিশ লক্ষ।
দু,লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের দাম কে দিবে?স্বাধীন বাংলাদেশের নামটাই যে তাদের প্রাপ্তি।এখানেও কেউ বলবে এক শ,এক হাজার ,এক লক্ষ আমি বলি যদি এক জন মায়ের, এক জনের বোনের ইজ্জতে লেগে থাকে দাগ ,সে আমার স্বাধীনতার অহংকার। সংখ্যানিয়ে টানা টানি বন্ধ করা কি যায় না !যারা দেশের স্বাধীনতার বিরুধী ছিলো তারা বলবে ,ইস্যু খুঁজবে ,ইটা যে ভাগ্যের পরিহাস।
সংখ্যা গণনায় আমরা বড় দুর্বল ,হেফাজতের সংখ্যা নিয়ে ও তামশা কম হয়নি ,সে দিন ও বলেছিলাম,একটি প্রাণ ও যদি নেয়া হয় ,তার নাম ও হতে পারে  লক্ষ হাজার, এ আমার আবেগ,আমার ভালোবাসা ,এ আমার দেশ প্রেম । সংখ্যায় বড় দুর্বল আমি,আমরা অংকে বড় কাঁচা  তাই সংখ্যা গুলিকে নাম হিসাবেই ধরে নিলাম।তবু স্বাধীনতার প্রশ্নে বিতর্ক নয় !দেশটা আমাদের সকলের ,যে যখন ক্ষমতায় এসেছে ,নিজেদের ইতিহাস নিজের মতো করে লিখেছে,লিখছে।
প্রসঙ্গ পাল্টে আমি যে জগতে বিচরণ করি অবাঞ্চিত হয়ে ,আজকাল সে জগৎকে ক কেউ বলে লেখার জগৎ ,কবিতার জগৎ ,সংবাদের জগৎ। এ জগতের প্রতি রয়েছে মানুষের টান ,মানুষের সন্মান।সবাই নাম লেখাতে চায়.এ জগতে হিংসা অনেক।প্রতিযোগিতা অনেক।নিজেরাই তৈরী করে প্রতিযোগিতার ! একে অন্যের লেখা অনেক সহ্য করতে পারেনা। ঈর্ষান্বিত হয়।
আমারও কেমন যেন বাতিক হয়ে গেছে। তাইতো ইট বালির মানুষ হয়েও হতে চাই কবি,লেখক সাংবাদিক। যা আমার পেশা নয় ,নেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যদিও এ জগৎটাতে  রাজনীতি নামের অশুভ দৈত্যের দৃষ্টি ,চাটুকারিতা ,হলুদ মন মানসিকতা,অর্থের লোভ,বাণিজ্য,প্ৰতিভা বাণিজ্যশুরু হয়েছে। নামকা  ওয়াস্তে অতি সহজেই পেতে চাই  এ জগতে সুনাম। কেউ চতুষ্পদ প্রাণীর ন্যায় বছরের পর বছর শ্রম মেধা দিচ্ছে। কেই এক কবিতা,এক গল্প,কপি পোষ্ট করে কবি ,লেখক,সাংবাদিকতায় এসেছে ফ্রি ল্যান্স।বিনা বেতনে নামের বিনিময়ে সংবাদ প্রেরণ,রিপোর্টার গিরি,সেখানেও ধরতো শয়তানি মন মানসিকতার লোকের প্রবেশ। যে জীবনে কম্পিটারে অনলাইন পোর্টালে ঢুকতে পারতো না সেও হয়ে যাচ্ছে সাংবাদিক।
আগের দিনে এলাকার  বড় ভাই যে রাস্তায় যেতো সে রাস্তায় ছোট্র বা নবীনরা যেতো না. এখন জগ ডিজিটাল। কথা এ জন্য বললাম দেখা গেলো এক জন দীর্ঘ দিন যাবৎ একটা পত্রিকায় নিউজ পাঠায়,তা জেনেও আরেক নিউজ পাঠাচ্ছে। অনলাইনের সম্পাদক আগের নিউজ দাতাকে না জানিয়ে তার নিউজ প্রকাশ করছেন।ব্যাস নতুন ও হয়ে গেলেন সাংবাদিক। এখন যেকোন নিউজের কিন্তু একটা দায়িত্ব থাকে,যে পাঠায় তার,যে প্রকাশ করে তার। যেহেতু বিনা পারিশ্রমিকের সেহেতু কি বলার আছে কার?
জানিনা অদূর ভবিষ্যতে কত লক্ষ কোটি কবি সংগঠন,লেখক ফোরাম,অনলাইন সংবাদ পত্র ,সাংবাদিক সংগঠনের সৃষ্টি হবে.পদ পদবি সম্মাননা নামের সস্তা কুট কৌশলের  চাঁদাবাজির আয়োজন চলছেই। সবাইকে হতে হবে মাথা।সমাজের জন্য কি লিখলো,সমাজকে কি দিলো তা যেন গৌণ আজ।
সে দিন এক বন্ধু বলছিলো ,তুই বেটা ফেসবুকি কবি ,জানিস ,দেশে আজ কত কবি,বললাম কতো? কবিদের আদম শুমারি হয়েছে নাকি? বলল না ,তবে মনে হয় ৩৪ কোটি ,কি করে সম্ভব ,জনসংখ্যাইতো ১৭ কোটি,ইতর মার্কা তাচ্ছিল্যের হাসিতে বলল ,কেউ লিখে বিবেক থেকে ,সমাজের জন্য ,কেউ কবিতা লিখে  অন্যপথে! মানে কি ? সে বলল , মানুষ কেউ কথা বলে ,উপরের পথে কেউ ছাড়ে  পশ্চাতে। খারাপ লাগলো ,আমি আছি কোন পথে?সে আরো বললো ,আজ কাল মানুষের কথা শুনলেই মনে হয় কবিতা পড়ছে,পাগলের প্রলাপ করছে।আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যা অবস্থা ,কেউ যদি কবি শুমারিটা করতো ?
ফিরে  শুরুতে , আচ্ছা যারা ত্রিশ লক্ষের নিচে নামিয়ে আনতে চান মুক্তিযোদ্ধা শহীদের সংখ্যা তাদের লাভটা কি ?আর বেশি হলেই তারা কি করবেন? আজ থেকে আমি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের,শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের  সংখ্যা, "ত্রিশ লক্ষ" এই সংখ্যাটাকে নাম হিসাবে নিলাম,আর কবির সংখ্যা ,থাক বিতর্ক নাই হোক কবিদের নিয়ে ,কবিরা ,লেখকরা,সাংবাদিক,রিপোর্টার লিখুক দেশ ,জাতি, সমাজের কল্যানে। দেখা দেখি,হিংসা,তারমতো হতে হবে,আমি কম কিসে এই সব ভাবনার ঊর্র্ধে উঠে সঠিক তথ্য উপাত্ত দিয়ে ,সুন্দর আগামীর জন্য লিখুক সবাই।আমি না হয় থাকবো অবাঞ্চিত মোটা মাথার পশ্চ্যাতের কেউ বা কতিপয় হয়ে !

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন