মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০৬:৪৪:১২ পিএম

কাজ শেষ হওয়ার আগেই ভেঙ্গে গেছে ব্রিজ

কাজী আনিছুর রহমান | জেলার খবর | নওগাঁ | শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০১৬ | ০১:৪৭:৩৩ পিএম

নওগাঁর রাণীনগর  উপজেলার মিরাট ইউনিয়নের ২০১২-১৩ অর্খবছরে একটি নির্মাণ  কাজ শুরু হয়। কিন্তু ব্রিজ নির্মানের কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও কাজ  নিম্নমানের হওয়ায় শেষের দিকে এসে ব্রিজের মাঝের পিলারটি  দেবে যায়। ব্রিজের মাঝখানের দুই জায়গায় ভেঙ্গে যায়। এক বছর  পেরিয়ে গেলেও আজও ব্রিজটি পুর্ণনির্মাণ করার কোন প্রদক্ষেপ  গ্রহণ করেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।  

এত ওই ইউনিয়নের হামিদপুর,বৌঠাখালী, রঘুনাথপুর,  সিকরিপুর,সেকেপুকুর,সাতপাড়া, আতাইকুলা, ধনপাড়া,  হরিশপুর, বিলবাড়ি, বড়খোল, ডাঙ্গাপাড়া, দরঘাটা,মিঠাইপুরসহ  ১৬টি গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষের চলাচলের একমাত্র উপায়  এখন নড়বড়ে বাঁশের সাকোঁ। বিকল্প কোন পথ না থাকায় ঝঁকি  নিয়ে সাঁকো দিয়েই চলাচল করতে হচ্ছেএলাকার মানুষদের।  

স্থানীয় রসুল প্রাং, জিয়ারুল ইসলাম , নাছির উদ্দিন,সাহেব আলী  জানান, ব্রিজের কাজের শুরু থেকেই অনিয়ম হয়েছে। অনিয়ম ও  নিম্নমানের কাজ হওয়ায় পিলারটি দেবে যায়। এরপর ১ বছর পেরিয়ে  গেছে। কিন্তু ব্রিজটি পুননির্মাণ করা হয়নি। একটি ব্রিজের  কারণে ওই এলাকার উৎপাদিত ফসল ঠিক সময় হাটবাজারে নেওয়া  যায়না। ফলে ফসলের নায্যমুল্য থেকে বঞ্চিত হতে হয়। এতে কৃষকসহ  স্থানীয় ব্যবসায়ীদের লোকসান গুনতে হয় প্রতিনিয়ত।  

মিরাট ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, ব্রিজটি  নির্মাণে ব্যাপক অনিয়শ ও কাজ নিম্নমানের হওয়ায় উদ্বোধনের  আগেই দেবে যায় পিলার। ভেঙ্গে যায় দুই জায়গায়।  উপজেলা প্রকৌশলী মো: সাইদুর রহমান মিঞা জানান, ব্রিজটি  ভেঙ্গে যাওয়ার ঘটনাটি আমি কর্মস্থলে যোগদানের আগে। তবে  নতুন করে ব্রিজ নির্মাণের জন্য প্রক্রিয়া শেষের দিকে। বরাদ্দ পেলেই  নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন