রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০ ১১:১১:৪৮ পিএম

নওগাঁয় একটি ক্লিনিক ও হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা

জেলার খবর | নওগাঁ | মঙ্গলবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৬ | ০২:৫৯:৩৫ এএম

নওগাঁর পত্মীতলা উপজেলা সদরে চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা ও অপরিছন্ন-নোঙড়া পরিবেশে চিকিৎসা সেবা প্রদানের অভিযোগে উপজেলার ইসলামিয়া ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এবং মেছের হোমিও হল বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। আজ সোমবার বিকেলে নওগাঁর সিভিল সার্জন ডাঃ এ কে এম মোজাহার হোসেন ওই দুটি সেবা কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এই ঘোষনা দেন।
তিনি জানান, ইসলামিয়া ক্লিনিকের মালিক এস এম নাজিম বাবু ১০ শয্যার ক্লিনিকের অনুমোদন নিয়ে ২৭ শয্যা বসিয়ে অত্যন্ত নোঙড়া পরিবেশে চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষের নিকট থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। 
সিভিল সার্জন বলেন, ওই ক্লিনিকে সার্বক্ষণিক একজন এমবিবিএস ডাক্তার থাকার কথা থাকলেও ক্লিনিকে ওই সময় কাউকে পাওয়া যায়নি। এমন কি কোন ডাক্তারই নেই। আয়া-পিয়ন দিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ক্লিনিকে টিন সেডের গ্যারেজে ডায়াগনষ্টিক কেন্দ্র স্থাপন করে রোগী প্যাথলজি রির্পোট তৈরি করা হচ্ছে। অথচ ওই সেন্টারে কোন প্যাথলজিষ্ট বা টেকনিয়াশিয়ান খুঁজে পাওয়া যায়নি। একই সময়ে তিনি শহরের মেসের হোমিও হল পরিদর্শন করে দেখতে পান সেখানে হোমিও ওষুদের চেয়ে আয়ুরর্বেদিক ওষুধই বেশী। সেখানে আবার সর্বরোগের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। একজন হোমিও চিকিৎসক শুধু হোমিও চিকিৎসা দিবেন। তিনি অন্য কোন চিকিৎসা দেওয়া অপরাধ। এই কারণে ওই দুটি চিকিৎসা সেবা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে জেলার মহাদেবপুর উপজেলার কলাবাগান এলাকায় ভুয়া হাড়-জোড় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সেজে ডাঃ ইজবর আলী নামে এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে তার চেম্বারে গেলে কথিত ওই ডাক্তার চেম্বারের প্রাচীর টপকিয়ে পালিয়ে যান। 
পত্মীতলার ইসলামিয়া ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের নানা অনিয়ম ও অব্যস্থাপনার কারণে সম্প্রতি র‌্যাব জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি দল অভিযান চালিয়ে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে ওই ক্লিনিক বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে জানান সিভিল সার্জন মোজাহার।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন